নিঃসন্দেহে দেশে ধর্ষণ বেড়েছে, সামাজিক আন্দোলন গড়ে তুলতে হবে

পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি) মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারী বলেছেন, সাংবাদিক দম্পতি সাগর সরওয়ার ও মেহেরুন রুনি হত্যা মামলা নিয়ে কোনো ধরেনর চাপ নেই। বিশ্বের বিভিন্ন দেশে হত্যা মামলার ক্ষেত্রে কোনোটির রহস্য দ্রুত উদঘাটন হয়। আবার কোনো মামলার তদন্তে সময় লাগে, দেরিতে রহস্য উন্মোচন হয়। তবে সাংবাদিক দম্পতি হত্যা মামলা তদন্তে সময় লাগলেও পুলিশের ব্যর্থতা বলা যাবে না। মামলার অগ্রগতির জন্য সর্বোচ্চ চেষ্টা চলছে।

জাবেদ পাটোয়ারী বলেন, পুলিশের পাশাপাশি সাগর-রুনি হত্যা মামলার রহস্য উদঘাটনে কাজ করছে র‌্যাব। প্রতিটি তথ্য খতিয়ে দেখছে তারা। যাচাই-বাছাইয়ের কারণে বেশি সময় লাগছে হয়তো।

বুধবার (১২ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে বরিশাল পুলিশ লাইনসে জেলা পুলিশের বহুতল ব্যারাক, গৌরনদী সার্কেল অফিস ও গৌরনদীর আগরপুর পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের উদ্বোধন শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এসব কথা বলেন তিনি।

আইজিপি বলেন, সাগর-রুনি হত্যা মামলার তদন্ত কর্মকর্তা বা সংস্থা পরিবর্তনের বিষয়টি আদালতের এখতিয়ার। সাগর-রুনির পরিবার যদি আদালতে আবেদন করেন। আদালত চাইলে অবশ্যই তদন্ত কর্মকর্তা বা সংস্থা পরিবর্তন করা হবে।

সাংবাদিকদের আরেক প্রশ্নের জবাবে আইজিপি জাবেদ পাটোয়ারী বলেন, পরিসংখ্যানগত দিক থেকে দেশে ধর্ষণের সংখ্যা নিঃসন্দেহে বেড়েছে। তবে ধর্ষণের প্রতিটি ঘটনার তদন্ত হচ্ছে। প্রতিটি ঘটনায় আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে। এক্ষেত্রে পুলিশের গাফিলতির সুযোগ নেই। তবে পুরো বিষয়টি নিয়ে ভাবার সময় এসেছে। সমাজের এই অবক্ষয় দূর করতে আমাদের পরবর্তী প্রজন্মকে নৈতিক শিক্ষা দিতে হবে। ধর্ষণ রোধে সামাজিক আন্দোলন গড়ে তুলতে হবে।

এর আগে বেলুন-ফেস্টুন উড়িয়ে জেলা পুলিশের বহুতল ব্যারাক ভবনসহ তিনটি কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন আইজিপি। এ সময় অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বরিশাল রেঞ্জের ডিআইজি মো. শফিকুল ইসলাম, মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশানর মো. সাহাবুদ্দিন খান ও জেলা পুলিশ সুপার মো. সাইফুল ইসলাম প্রমুখ।

Related posts

Leave a Comment